Facebook trick

facebook এর নতুন নাম মেটাফর্স

 

facebook এর নতুন নাম মেটাফর্স

আসসালামুয়ালাইকুম

আমরা ইতিমধ্যে জেনেছি যে ফেসবুক তাদের নাম চেঞ্জ করেছি তো অনেকের মধ্যে কনফিউশন ছিল যে ফেসবুক তাদের নাম চেঞ্জ করেনি তাদের কোম্পানির নাম কারণ ফেসবুকের আন্ডারে তখন আওয়ার্ডস অফ ইনস্টাগ্রাম এ ধরনের আরো কোম্পানিগুলো ছিল ফেসবুক ছিল তো এখন সেই কোম্পানির নাম হয়ে গেছে মেটাফর্স তো কেন পরিবর্তন করা হল আর এই মেয়েটা অভ্যাসটা কি নামে ডাকি সে সম্পূর্ন বিষয়ে আমরা জানবো আমাদের চ্যানেলে তো অবশ্যই আমাদের চ্যানেলের সাথে থাকবেন বর্তমান প্রযুক্তি বিশ্বে সবচেয়ে আলোচিত বিষয় হচ্ছে মাথা প্রযুক্তির দানব প্রতিষ্ঠান ফেসবুক তাদের কোম্পানির নাম পরিবর্তন করে রেখেছে মেয়েটা কারণ তাদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জুড়ে রয়েছে মেটাভাস প্রযুক্তি প্রযুক্তি হাত ধরে বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী বাস্তবে পরিণত হতে চলেছে মেয়েটা আবার পুরোপুরি কার্যকর হলে আমাদের চেনা-জানা পৃথিবীর সম্পূর্ণভাবে বদলে যাবে আজকে চলেন আমরা সম্পূর্ণ ডিটেইলস এ জানব যে আসলে কেন মেয়েটা ভার্সেস এত ইম্পরট্যান্ট এবং কি হতে চলেছে মেটাভাস আসলে আসলে কি হবে আমরা জানি যে গুগল তাদের কিন্তু গুগল যেমন একটা কোম্পানির আন্ডারে চলে যেমন আলফাবেট ঠিক আছে তো আসলেই মেটাভাস
facebook এর নতুন নাম মেটাফর্স
থাকি তো এখানে আমরা যদি জানতে চাই তাহলে এখানে দেখবেন গুগল যেমন আলফাবেট নামক কোম্পানির অধীনে কাজ করে একইভাবে এক একটি প্রাণ কোম্পানির অধীনে কাজ করবে ফেসবুক হোয়াটসঅ্যাপে ইনস্টাগ্রামে অন্যান্য কোম্পানির সার্ভিস ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছে দূতাবাসের মাধ্যমে গোটা দুনিয়া চলবে না তাই এই দুনিয়ায় নিজের নাম শক্ত করতে এখনই কোম্পানির নাম বদল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন এই কোম্পানিটি ইতিমধ্যেই ভার্চুয়াল রিয়েলিটি কোম্পানি অকুলাস কিনে নিয়েছে ফেসবুক তাই ভার্চুয়াল রিয়েলিটির দুনিয়ার পিছে থাকতে রাজি নয় কোম্পানিটি আর এই কারনেই সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানির পরিচয় থেকে বেরিয়ে আসতে চাইছে ফেসবুকে এই মুহূর্তে ফেসবুকের উপরে একাধিক অভিযোগ উঠেছে যা আমরা জানতে পারি
facebook এর নতুন নাম মেটাফর্স
নতুন করে গ্রাহকের বিশ্বাস ফিরে পেতে চাইছে কোম্পানিটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ একাধিক দেশের ইতিমধ্যে কড়া সমালোচনার সম্মুখীন হয়েছে কোম্পানিটি কোম্পানির বিরুদ্ধে জেনেশুনে সমাজের ক্ষতি করার অভিযোগ এনেছেন ফেসবুকে প্রাক্তন প্রোডাক্ট ম্যানেজার আসলে কি এই প্রশ্নের উত্তর হতে পারে এটা বলা চলে ইন্টারনেটের একটি আপডেট ভার্সন বা ইন্টারনেটের একটি নতুন অধ্যায়ের কিন্তু এই প্রশ্নের সহজ উত্তর হলো মেয়েটা ফার্স্ট একটি সমান্তরাল ভার্চুয়াল দুনিয়া যেখানে বিভিন্ন চরিত্র পরিচয় জিনিসপত্র থাকবে মানে এমন ভাবে এরা যদি আপনাকে বুঝানো বলিস আপনি আপনাকে একটা চশমা দিয়ে দেওয়া হবে এবং একটা ভিডিও গেম বাইক টা ভিডিও তে আপনি যদি কাউকে দেখছেন তাহলে আপনি নিজেকে সেখানে উপস্থিত দেখতে পাবেন মানে এমন ভাবে সেটাকে আপনাকে আপনার চোখের সামনে নিয়ে আসা হবে যে আপনি মনে করবেন যে এই আত্নীয় সেখানে উপস্থিত রয়েছেন তিনি এই বৈজ্ঞানিক সার্ভিস নিয়ে এখনো কাজ চলছে এবং অনেক ধরনের উত্তর তুই পারে ইন্টারনেট জমানোর পরে মেয়েটা ভার্সেস জনপ্রিয়তা পেতে পারে তবে সিলিকন ভ্যালির গবেষকরা মনে করেন আফ্রিকার ডিজিটাল দুনিয়া উপস্থিত থাকবে মেটাফর্স তবে একটি
মাত্র কোম্পানির মাধ্যমে মেটাভাস তৈরি সম্ভব নয় তাই ফেসবুক ছাড়াও আরো অনেক কোম্পানির মেটাভাস তৈরির কাজ শুরু করে দিয়েছে আরেকটি কাজ কিভাবে করবে এটি ডিজিটাল স্পেস ভার্চুয়াল রিয়েলিটি গেম একটি ভার্চুয়াল দুনিয়া অথবা ফোর্টনাইট এর মত সামান্য এক গ্যামেটোফাইট হিসেবে কাজ করতে পারে সম্প্রতি ফর্টনাইট এক মিউজিক এক্সপেরিয়েন্স আয়োজন করেছিল সেখানে গেমের মধ্যে শিল্পীদের সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হচ্ছিলো অর্থাৎ গেমের মধ্যে নিজেদের প্রডাক্টস করতে পারবে ম্যাচের মাধ্যমে গ্রাহক সার্ভিস পেতে পারে এছাড়া ক্রিপ্টোকারেন্সি মাধ্যমে ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট করা যাবে মানুষ সম্পদ তৈরি করা যাবে মেয়েটা ফেসবুকের পরিকল্পনা দেখি আমরা যদি এই বিষয়ে জানতে চাই ফেসবুকের ভবিষ্যতের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ মেটাভাস এমন একটি ডিজিটাল দুনিয়া যেখানে মানুষ বেশিরভাগ সময় বন্ধুদের সঙ্গে কাটাবে এবং ভার্চুয়াল এ সেটের মূল্য বেশি হবে সেখানে নিয়ম আলাদা হবে আর এইরকম একটা কিছু তৈরি করতে চাইছে ফেসবুক তো আসলে এটা নিয়ে অনেক ধরনের অনেক কোশ্চেন আছে কতদিনে হবে কি হবে না হবে তো ওইগুলো বিষয়ে আমরা যদি জানতে চাই আমাদেরকে কিছু অপেক্ষা করতে হবে অপেক্ষা !

ছাড়া কোন জ্ঞানই আমেটাফ আর যতক্ষণ না আমাদের ভার্চুয়াল বা আমাদের চোখের সামনে আসবে ততক্ষন কিন্তু আমরা জানতে পারব না বা বুঝতে পারব না যে এগজ্যাক্টলি আসলে জিনিসটা কি

ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button